গানের স্বরলিপি

আল্লাহু আল্লাহু

শুকরিয়া-সাইমুম শিল্পীগোষ্ঠী

আল্লাহু আল্লাহু আল্লাহু আল্লাহু

তুমি ভিতরে বাহিরে

কাছে কিবা দূরে

আছো সব মানুষের অন্তরে ॥

 

গাও গেরাম আর শহরে

আমির ফকির সব ঘরে

রাখো চোখে চোখে সব বান্দারে ॥

 

চোখের জলে চায় যারা

সঙ্গে সঙ্গে দাও সাড়া

দিনের আলোয় কি রাতের আন্ধারে ॥

 

তোমার ছায়া সবখানে

মায়া তোমার সব প্রাণে

তোমার নাই তুলনা এই সংসারে ॥

 

কথা ও সুর: তাফাজ্জল হোসাইন খান

আগের মতো শান্তি

জনপ্রিয় ইসলামী গান-সসাস

আগের মতো শান্তি তো আর এখন পাওয়া যায় না
মানুষ সব পাল্টে গেছে পাল্টেনি তো জামানা
মানুষ সব পাল্টে গেছে জামানা ঠিকই আছে।

 

চুল গুলো খাটো খাটো শার্ট প্যান্ট আটো সাঁটো
সানগ্লাস চোখে তার যেন কোন জমিদার
বুট জুতা পায়ে দিয়ে কাধে এক ব্যাগ নিয়ে
ঠোঁটে দেয় লিপিষ্টিক হাসে শুধু ফিক্ ফিক্
ওদিকে গেলো দু’চোখ মনে হলো ভদ্রলোক
কাছে গিয়ে দেখি হায় পুরুষ মানুষ না
মশান লইয়া দাড়াইয়া আছে মিছ জরিনা আপা।

 

লম্বা লম্বা আছে চুল কানে দেওয়া আছে দুল
হাতেতে সোনার চুরি চিকন ফিতার ঘড়ি
পাঞ্জাবি গায়ে দিয়ে হাত আছে মোড়ানো
লম্বা ওড়নাটা কাঁধে আছে ঝোলানো
হেঁটে চলে আঁকা বাঁকা যেন কোন নায়িকা
কাছে গিয়া দেখি হায়! মাইয়া মানুষ না
এইডা হল আমগো পাড়ার মিঃ সোহেল রানা।

 

মোটা বই আছে হাতে কলমটা আছে সাথে
সাদা শার্ট গায়ে দিয়ে সু-জোড়া পায়ে দিয়ে
জিন্সের পড়েছে প্যান্ট মনে হয় ষ্টুডেন্ট
পরনে আছে যে বেল্ট গায়ে মাখে দামী সেন্ট
যায় বন্ধুর আড্ডায় ছিনতায় করে রাস্তায়
নেশা করে ফিন্সি গেলে আট মাস থাকে জেলে
অবশেষে মনে হলো এইডা কোন ছাত্র না
এইডা হলো আমগো পাড়ার টোকাই বাবুল কানা।

 

কথা ও সুর: মাসুদ রানা
 

এক পা দুপা করিয়া

জনপ্রিয় ইসলামী গান-সসাস

এক পা দো পা করিয়া মাওলা গো
আমারে নিয়া চলো তুমি
গুনার বোঝা বইবো আর কত কাল আমি।

 

অন্তর দহন সদায় সদায়
প্রাণের জ্বালা কেউ বোঝে না
ঘাটের মরা ঘাটেই রইলাম

পাড়ের ভাঙন আর থামে না

খেয়া চোখে পড়ে না
দয়াল মোরে পার করো গো তুমি ।

 

এই বুঝি এই বেলা যায়রে হায় ডুবে
একটুখানি আলো জ্বালো আমার আঁধার ভবে
মাওলাগো মাওলাগো মাওলাগো
তোমার নামে সকল আসান
পার হয়ে যায় জানি -মাওলাগো
তুমি আমার জীবন খেয়ার মাঝি।

 

অন্তরঘরে নেই সে আলো
ভরে গেছে কালিমা
আঁধারে গুমরে মরি
এ কেমন যন্ত্রণা
কোরানের লালিমা
আমারে দেখাও প্রভু তুমি ।

 

কথা ও সুরঃ লিটন হাফিজ চৌধুরী 

 
 
 

কার নামে দুরুদ

জনপ্রিয় ইসলামী গান-সসাস

কার নামে দুরুদ পরে

জ্বীন পরী আর ফেরেশতারা

কার নামে বনে বনে

সুখের পিউ গায় পাপিয়ারা

সে যে জান্নাতি এক ফুল

সে যে মুহাম্মদ রাসূল ।

 

কার নামে পেল মৌমাছিরা

ফুলের মাঝে সেই স্বাদ

কার নামে ঐ শশীর মাঝে

প্রভু এঁকে দিল খাদ

কার হাসিতে ঝরে মুক্ত রাশি

সে যে রাসূলে মাক্বুল ।

 

কার নামে পেল চাঁদের আলো

কার নামে পেল ভোর

কার নামে ঐ বোরাক চলে

খুলে যায় আসমানী দোর

কার নামে তে ঈসা আসবে ফিরে

সে যে আহাম্মদ রাসূল ।

 

কথা: জাফর ফিরোজ

সুর: সাইফুল ইসলাম

 

আমায় এমন এক

জনপ্রিয় ইসলামী গান-সসাস

আমায় এমন এক গাঁয়ে নিয়ে চল

যেথা পাহারি ঝরনার ঢল

কল কল ছল ছল রব তুলে

নদী বয়ে চলে অবিরল ।   

 

আমায় এমন এক গাঁয়ে নিয়ে চ---ল...

হে ...হে-হে-হে... হে-হে-হে... 

এহেহে-  হে ...হে-হে-হে... হে-হে-হে... 

 

পাখিদের গানে গানে প্রভাত আসে

সাঁঝের আলোয়  দেখি শিশুরা হাঁসে

দিনান্তে বলাকা উড়ে নিড়ে ফিরে যায়

সাদা বক কলিদের দল ।। 

 

বনারন্যে হাওয়া দোল দিয়ে যায়

হাওয়াই দোলে ফুল সুবাস ছড়ায়

দিনান্তে ঘড়ে ফেরে ক্লান্ত মানুষ সব

চোখে সব নীল মহাকাল ।।

 

কথা ও সুর: আবুল আলা মাসুম

ধন ধান্য পুষ্প ভরা

সন্দীপন শিল্পীগোষ্ঠী

ধন ধান্য পুষ্প ভরা
                 -- দ্বিজেন্দ্রলাল রায়

ধনধান্য পুষ্প ভরা আমাদের এই বসুন্ধরা
তাহার মাঝে আছে দেশ এক সকল দেশের সেরা
ও সে স্বপ্ন দিয়ে তৈরি সে দেশ স্মৃতি দিয়ে ঘেরা
এমন দেশটি কোথাও খুঁজে পাবে নাকো তুমি
ও সে সকল দেশের রাণী সে যে আমার জন্মভূমি
সে যে আমার জন্মভূমি, সে যে আমার জন্মভূমি।।

চন্দ্র সূর্য গ্রহতারা, কোথায় উজল এমন ধারা
কোথায় এমন খেলে তড়িৎ এমন কালো মেঘে
তার পাখির ডাকে ঘুমিয়ে উঠি পাখির ডাকে জেগে।।

এত স্নিগ্ধ নদী কাহার, কোথায় এমন ধুম্র পাহাড়
কোথায় এমন হরিত ক্ষেত্র আকাশ তলে মেশে
এমন ধানের উপর ঢেউ খেলে যায় বাতাস কাহার দেশে ।।

পুষ্পে পুষ্পে ভরা শাখি কুঞ্জে কুঞ্জে গাহে পাখি
গুঞ্জরিয়া আসে অলি পুঞ্জে পুঞ্জে ধেয়ে
তারা ফুলের ওপর ঘুমিয়ে পড়ে ফুলের মধু খেয়ে।।

ভায়ের মায়ের এত স্নেহ কোথায় গেলে পাবে কেহ
ওমা তোমার চরণ দুটি বক্ষে আমার ধরি
আমার এই দেশেতে জন্ম যেন এই দেশেতে মরি।।